হাঁটুতে ক্ষয়বাত হলে

    38


    চল্লিশ বছরের বেশি বয়সের মানুষের ক্ষেত্রে হাঁটুর ব্যথার বড় কারণ অস্টিওআর্থ্রাইটিস বা হাঁটুর ক্ষয়বাত। বিভিন্ন কারণে হাঁটুর ব্যথা হতে পারে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এই ব্যথার জন্য আঘাত একটি বড় কারণ। আবার কিছু আর্থ্রাইটিস আছে, যার ফলে জয়েন্টে প্রদাহ হয় এবং ব্যথার সৃষ্টি হয়। কখনো কখনো হাঁটু ফুলে যায়।

    কেন হয়  
    হাঁটুর অস্টিওআর্থ্রাইটিস বয়সজনিত ক্ষয়রোগ হিসেবে পরিচিত। যদিও বয়স ছাড়াও বিভিন্ন কারণে হাঁটুর অস্টিওআর্থ্রাইটিস হতে পারে। এ ছাড়া কার্টিলেজের ক্ষয়ের জন্য বংশগত কারণেও এ রোগ হয়ে থাকে।

    লক্ষণ ও উপসর্গ

    • হাঁটুতে ব্যথা।
    • সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করা বা পরিশ্রমের পর হাঁটুর ব্যথা বেড়ে যাওয়া।
    • হাঁটু ভাঁজ করে নামাজ পড়ার সময় ব্যথা বোধ করা।
    • হাঁটুর জয়েন্ট আড়ষ্ট হয়ে যাওয়া।
    • বসে থাকা অবস্থায়ও ব্যথার অনুভূতি হওয়া। 

    নিয়মিত ব্যায়াম করুন

    • হাঁটুর অস্টিওআর্থ্রাইটিস সাধারণত ঊরুর পেশিকে দুর্বল করে দেয়। তাই ঊরুর পেশি মজবুত করা প্রয়োজন। কারণ এই পেশি হাঁটুর জয়েন্টের কিছু চাপ নেয় এবং হাঁটুকে ক্ষতির হাত থেকে বাঁচায়। পেশি মজবুত করার জন্য কিছু ব্যায়াম করতে হবে।
    • যে ব্যায়ামগুলো রোজ করবেন
    • সোজা হয়ে পা সোজা করে বসুন। তারপর একটি তোয়ালে রোল করে একটি হাঁটুর নিচে রেখে হাঁটু দিয়ে তোয়ালেতে চাপ দিন। এভাবে ১০ সেকেন্ড থাকুন। শরীরের অন্যান্য অংশ স্বাভাবিক রাখুন এবং স্বাভাবিকভাবেই শ্বাস-প্রশ্বাস নিন। এভাবে অন্য পায়েও করুন ১০ বার।
    • প্রথমে সোজা হয়ে বসুন। পা দুটো অর্ধেক ভাঁজ করুন। এবার একটি পায়ের গোড়ালি দিয়ে মেঝেতে চাপ দিন। এভাবে ১০ সেকেন্ড থাকুন। এরপর অন্য পায়েও করুন ১০ বার।
    • একটি চেয়ারে বসুন। এরপর ধীরে ধীরে একটি পা সোজা করে ওপরে তুলতে থাকুন। পা-টি সোজা অবস্থায় এলে ১০ সেকেন্ড ধরে থাকুন। এরপর পা নিচে নামিয়ে অন্য পায়েও একই ব্যায়াম করুন ১০ বার।

    লেখক: ফিজিওথেরাপি কনসালট্যান্ট, পিটিআরসি, ঢাকা





    Source link