বন্যায় নিরাপদ থাকুন

    33


    বন্যা চলছে। দেশের এক বিশাল এলাকার মানুষ পানিবন্দী দুর্বিষহ জীবন যাপন করছেন। প্রতিদিন নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হওয়ার সংবাদ পাওয়া যাচ্ছে। নতুন এলাকাগুলো প্লাবিত হওয়ার আগেই কিছু প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা নিলে স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি কিছুটা কমানো সম্ভব।

    • বন্যা আসার আগেই শুকনো খাবার চিড়া, মুড়ি, খই, হাই প্রোটিনযুক্ত বিস্কুট, দেশলাই, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট ও ফিটকিরি, মশার কয়েল, দলিল বা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পলিথিনে মুড়িয়ে ভালো করে রেখে দিন।
    • গর্ভবতী, শিশু ও বৃদ্ধদের উঁচু জায়গায় রাখার ব্যবস্থা করুন। বন্যার পানি ওঠে না আপনার সে রকম কোনো আত্মীয়ের বাড়িতে তাদের রেখে আসতে পারেন। শিশুদের বন্যার পানিতে খেলতে দেবেন না।
    • অনেক মৃত প্রাণী পচে তীব্র দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পরিবেশ দূষিত করে। সেই সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের জীবাণু ছড়িয়ে পড়ে। স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে মৃতদেহ মাটির তিন মিটার নিচে পুঁতে ফেলতে হবে। খালি হাতে মৃতদেহ ধরবেন না।
    • গ্যাস ও বিদ্যুৎ-সংযোগ বন্ধ করে দিন। বাড়িতে ফেরার পর সেগুলো ঠিক আছে কি না, তা সতর্কতার সঙ্গে পরীক্ষা করুন।
    • টিউবওয়েলের মুখ পলিথিন দিয়ে শক্ত করে বেঁধে দিন। পানি নেমে যাওয়ার পর নলকূপের পরিষ্কার পানি না আসা পর্যন্ত পানি চেপে ফেলে দিন।
    • বন্যার পানিতে কার্পেট, ঘর, বিছানাপত্রসহ অন্যান্য ডুবে যাওয়া আসবাবে জন্মানো ছত্রাক নানা অসুখের কারণ হতে পারে। পানি নেমে যাওয়ার পর ছিদ্রযুক্ত বা স্পঞ্জি জিনিসপত্রগুলো, যেমন কার্পেট, ফেলে দিন।
    • সম্ভব হলে প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র ও স্যানিটারি ন্যাপকিন সংগ্রহ করে রাখুন।

    লেখক: কনসালট্যান্ট নিউরোলজিস্ট, ল্যাবএইড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ঢাকা





    Source link