খাদ্যতালিকায় সুষম খাবার রাখুন

    27


    হাড়ের সমস্যা
    প্রশ্ন: আমি দশম শ্রেণির ছাত্র। দীর্ঘদিন ধরে মাথার পেছনের অংশে ও ঘাড়ে ব্যথার সমস্যায় ভুগছি। মেরুদণ্ডের উপরিভাগেও ব্যথা অনুভূত হয়। অনেক ধরনের চিকিৎসা নেওয়ার পরও এ সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাচ্ছি না। কী করণীয়?

    সাদ, ঢাকা

    উত্তর: অনেকক্ষণ ধরে সামনে ঝুঁকে পড়াশোনা করার জন্য আপনার এই সমস্যা হয়ে থাকতে পারে। এমন সমস্যার ক্ষেত্রে দেখা যায় অনেক সময় মেরুদণ্ডের কাঠামোতে পরিবর্তন আসে। সে ক্ষেত্রে আপনাকে নিয়মিত ঘাড়ের ব্যায়াম করতে হবে এবং প্রতি ৩০ মিনিট অন্তর ঘাড় মাথার পেছনে ও ডানে-বাঁয়ে ঘোরাতে হবে। এতে আপনার সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। না হলে চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে।

    মাহমুদা আক্তার রোজী, ফিজিওথেরাপি কনসালট্যান্ট, এক্সট্রা মাইল এইজ কেয়ার

    পুষ্টি

    প্রশ্ন: ঠিকমতো খেতে পারি না, রুচি নেই। আর খেলেও সেটা শরীরে লাগে না বলে আমার মনে হয়। দিন দিন রোগা হয়ে যাচ্ছি। এটার জন্য কী সমাধান আছে?

    আকাশ কর্মকার, ঢাকা

    উত্তর: প্রথমত একজন চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে, কেন রুচি নেই ও সঠিকভাবে খেলেও সেটা কেন শরীরে লাগছে না এটা বোঝার জন্য। এ ধরনের সমস্যা কোনো না কোনো রোগের জন্য হয়ে থাকে। তারপর খেয়াল রাখতে হবে, লাইফস্টাইল ঠিক আছে কি না। পরিপূর্ণ পুষ্টিসমৃদ্ধ খাবার খাচ্ছেন কি না এবং ঘুমের ক্ষেত্রে কোনো অনিয়ম হচ্ছে কি না, এ তথ্যগুলো ঠিকমতো জানা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এর পাশাপাশি প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় সুষম খাবার অর্থাৎ শর্করা, প্রোটিন, চর্বি, ভিটামিন এবং মিনারেল পর্যাপ্ত পরিমাণে রাখতে হবে। মুখে রুচি আনার জন্য বিভিন্ন ধরনের ডিটক্স, ফলের শরবত, সিজনাল ফল খাবারের তালিকায় রাখতে হবে।

    ইতি খন্দকার, পুষ্টিবিদ, লেজার ট্রিট

    ত্বকের সমস্যা
    প্রশ্ন: আমার বয়স ৩০ বছর। আমার মুখমণ্ডলের ত্বকে মেছতার কালো দাগ কোনোভাবেই ভালো হচ্ছে না। আমি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ থেকে চিকিৎসা নিয়ে যে ক্রিমগুলো ব্যবহার করেছি, তা হলো মেলাট্রিন, স্লটক্লিন, ট্রাইমেলা, অ্যাভোকুইন। দুই বছর আগেও আমার মুখে এত মেছতা ছিল না। আমি রোদে তেমন একটা বের হই না। এ অবস্থায় করণীয় কী?

    মো. তৌহিদুল ইসলাম, রাজশাহী

    উত্তর: আপনি যে পণ্যগুলো ব্যবহার করেছেন, সেগুলোতে হাইড্রোকুইন আছে। হাইড্রোকুইনযুক্ত যেকোনো মেছতার ক্রিম দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহার করা যায় না। কিছুদিন পরে বিরতি দিতে হয়। এ ক্ষেত্রে আপনি আর্বুটিন লিকোরিশযুক্ত কোনো ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারেন। এখন মেছতার দাগকে হালকা করার জন্য অনেক ক্রিম পাওয়া যায়, যা ত্বকের খুব একটা ক্ষতি করে না। আপনাকে এসপিএফ ৫০ যুক্ত এবং পিএ++ সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। আপনি বলেছেন রোদে বের হন না। রোদে বের না হলেও প্রতিদিনের ত্বকের যত্নে সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। সূর্যের আলো ছাড়াও প্রতিদিন কম্পিউটার বা মোবাইল ফোনের ইনফ্রা রে এবং বাড়িতে ব্যবহৃত হাই এনার্জি ভিজিবল লাইট ত্বকের ক্ষতি করে। এসবের কারণেও মেছতা বাড়তে পারে। আপনি যে ক্রিমগুলো ব্যবহার করেছেন সেগুলো ব্যবহারের পাশাপাশি হয়তো সানস্ক্রিন ব্যবহার করেননি। সে কারণে দাগ আরও গভীরে চলে গেছে। এ ক্ষেত্রে আপনি যে ক্লিনজারটি ব্যবহার করবেন সেটিতে যেন স্কিন গ্লোয়িং ইফেক্ট থাকে।

    আপনার ত্বকের ধরন লেখেননি। আপনার ত্বক যদি তৈলাক্ত বা তেলতেলে হয় তাহলে ওয়াটারবেজড ক্লিনজার ব্যবহার করতে হবে। অ্যান্টি-অক্সিডেন্টযুক্ত খাবার এবং সাপ্লিমেন্ট হিসেবে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট খেতে পারেন।

    ডা. তাওহীদা রহমান ইরিন, চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ, শিওর সেল মেডিকেল, ঢাকা





    Source link