সড়ক পরিবহন খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি ৩ হাজার ৬৫০ কোটি টাকা

38


২০২২-২৩ অর্থবছরে প্রস্তাবিত বাজেটে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ খাতে ৩৬ হাজার ৬৪৭ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। ২০২১-২২ অর্থ বছরে এই খাতে ব্যয় ধরা হয়েছিল ৩২ হাজার ৯৯৭ কোটি টাকা। যা গত অর্থবছরের তুলনায় ৩ হাজার ৬৫০ কোটি টাকা বেড়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় জাতীয় সংসদের অধিবেশনে বাজেট বক্তৃতার মাধ্যমে প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করেন তিনি।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল আগামী ২০২২-২০২৩ অর্থবছরে জন্য ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা বাজেট উপস্থাপন করেছেন। প্রস্তাবিত বাজেটে ২ লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা ঘাটতি হিসাবে ধরা হয়েছে। এতে ব্যাংক থেকেই ১ লাখ ৬ হাজার ৩৩৪ কোটি টাকা ধার করার পরিকল্পনা রয়েছে। যা দেশের জিডিপির ৫ দশমিক ৫ শতাংশ। এটি বর্তমান সরকারের ২৩ তম, বাংলাদেশের ৫১ তম ও বর্তমান অর্থমন্ত্রীর চতুর্থ বাজেট। 

বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘দেশে শিল্প ও বাণিজ্য সহায়ক পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষ্যে সরকার বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে, যার মধ্যে পদ্মা সেতু অন্যতম। আগামী ২৫ জুন তারিখে সেতুটি যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে। শেখ মুজিবুর রহমান টানেল প্রকল্পের নির্মাণকাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে এবং ডিসেম্বর ২০২২ এর মধ্যে টানেলটি যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা সম্ভব হবে। ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্পটির ভূমি অধিগ্রহণ কার্যক্রম চলমান আছে।’

এ ছাড়া, ভূলতা-আড়াইহাজার বাঞ্ছারামপুর সড়কে মেঘনা নদীর ওপর সেতু নির্মাণ, বরিশাল-ভোলা সড়কে কালাবদর ও তেঁতুলিয়া সেতু নির্মাণ, মিঠামইন সেনানিবাস হয়ে কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ উপজেলার মরিচখালী পর্যন্ত একটি দ্বিতল সড়ক নির্মাণের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা চলমান আছে। পাশাপাশি, যমুনা নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা চলমান আছে বলেও জানান তিনি।





Source link