দক্ষিণ কোরিয়ায় দুই দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি 

33


দক্ষিণ কোরিয়ায় মূল্যস্ফীতির হার গত দুই দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে। দেশটিতে জ্বালানি ও খাদ্যপণ্যের দাম ক্রমশ বৃদ্ধির পাওয়ায় অস্বাভাবিক হারে মূল্যস্ফীতি হয়েছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকেরা। 

দেশটির সরকারি পরিসংখ্যান উল্লেখ করে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত মাসে দক্ষিণ কোরিয়ায় ভোক্তা মূল্য সূচক ৬ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে। ১৯৯৮ সালের নভেম্বরে এশিয়ার আর্থিক মন্দার পর এটিই সর্বোচ্চ স্তর। গত মাসে ডলারের দামের ঊর্ধ্বগতির কারণে দেশটির বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমেছে ৯৪৩ কোটি ডলার। 

এদিকে ব্যাংক অব কোরিয়া মঙ্গলবার জানিয়েছে, তারা দেশের বৈদেশিক মুদ্রার বাজারের অস্থিরতা কমাতে জুনেও রিজার্ভের কিছু অংশ বিক্রি করেছে। তবে কি পরিমাণ বিক্রি করা হয়েছে, তা প্রকাশ করা হয়নি। 

নিক্কেই এশিয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত মাসে দক্ষিণ কোরিয়ার ভোক্তামূল্য সূচক প্রায় সব খাতেই ঊর্ধ্বমুখী ছিল। এ সময় পেট্রোলিয়াম জাতীয় পণ্য ৩৯ দশমিক ৬ শতাংশ এবং রেস্তোরাঁর খাবারের দাম ৮ শতাংশ বেড়েছে। এ ব্যাপারে কোরিয়ার পরিসংখ্যান বিভাগের পরিচালক ইওহ উন-সান এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি বলেছেন, ‘ভোজ্যতেল ও জ্বালানির দামের ঊর্ধ্বগতি আমাদের শিল্প ও মুদি পণ্যের ওপর প্রভাব ফেলছে। এটা অর্থনীতির জন্য সহজ পরিস্থিতি নয়।’ 

মূল্যস্ফীতি বেড়ে যাওয়ায় দক্ষিণ কোরিয়ার শ্রমজীবী মানুষেরা এরই মধ্যে মজুরি বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন। এমনকি হুনদাই মোটরস কোম্পানির শ্রমিকেরা ধর্মঘটে যাওয়ার হুমকিও দিয়েছেন।





Source link