ডিএসই এমডির পদত্যাগে বোর্ডের সায়

25


দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক তারিক আমিন ভূঁইয়ার পদত্যাগে সম্মতি দিয়েছে এর পরিচালনা বোর্ড। এতে আগামী দুই সপ্তাহ পর তাঁকে এমডির পদ ছাড়তে হবে।

এমডির পদত্যাগ পত্র গ্রহণের কথা জানিয়েছেন সংস্থাটির চেয়ারম্যান চেয়ারম্যান মো. ইউনূসুর রহমান। তিনি আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘ডিএসই বোর্ড আজ ওনার পদত্যাগ পত্র একসেপ্ট (গ্রহণ) করেছে। তিনি আমাদের সঙ্গে দুই সপ্তাহ থাকবেন। তারপর যাবেন।’

যদিও পদত্যাগ পত্রে অক্টোবরের শেষে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেওয়ার কথা বলেছিলেন এমডি তারিক আমিন ভূঁইয়া। তবে তার দুই মাস আগেই তাকে এমডি পদ থেকে সরে যেতে হবে। তিন বছরের জন্য নিয়োগ পেলেও সব মিলেয়ে সাড়ে ১৩ মাসের মতো সংস্থাটির এমডি পদে থাকছেন তিনি।

এর আগে নানা বিষয় নিয়ে পর্ষদের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হওয়ায় ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তারিক আমিন ভূঁইয়া গত মঙ্গলবার রাতে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মো. ইউনেসকোর রহমানের কাছে ই-মেইলে পদত্যাগপত্র পাঠান।

জানা গেছে, এমডি ও পরিচালনা পর্ষদের দূরত্বে দেশের প্রধান এ শেয়ারবাজারে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়। ডিএসইর প্রায় ৯৫ জন কর্মকর্তার পদোন্নতি নিয়ে দূরত্ব তৈরি হয়। পর্ষদের এক পক্ষ তাঁর দেওয়া এ পদোন্নতির আইনগত বৈধতা ও স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তোলায় তিনি পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন। 

আগে থেকেই পর্ষদের সঙ্গে দূরত্ব ছিল ডিএসসির এমডির। এ জন্য নিয়োগের এক বছরের বেশি সময় হলেও তার চাকরি কনফার্মেশন বা নিয়মিত হয়নি।

প্রযুক্তি খাতের বিশেষজ্ঞ তারিক আমিন ভূঁইয়া গত বছরের ২৫ জুলাই ডিএসইর এমডি হিসেবে যোগ দেন। তিন বছরের জন্য তাঁকে নিয়োগ দেয় পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

এর আগেও পর্ষদের সঙ্গে মতের অমিল হওয়ায় ডিএসইর কয়েকজন এমডি সময়ের আগে পদত্যাগ করেন। গত বছর পদত্যাগ করেন আগের এমডি কাজী ছানাউল হক।





Source link