রোববার থেকে সংসদের বাজেট অধিবেশন

18


রোববার (৫ জুন) থেকে শুরু হচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদের ১৮ তম তথা বাজেট অধিবেশন। আগামী বৃহস্পতিবার (৯ জুন) ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট পেশ হবে। করোনা পরবর্তীতে সময়ে এবারের অধিবেশন আগামী ৫ জুলাই পর্যন্ত চলতে পারে। 

এদিন বিকেল ৫টা থেকে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশন বসার কথা রয়েছে। এর আগে তাঁর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কার্য-উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে অধিবেশনের মেয়াদ নির্ধারণ করা হবে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে গত ১৮ মে এ অধিবেশন আহ্বান করেন। 

এ অধিবেশনে ২০২২-২৩ অর্থ বছরের বাজেট পেশ ও পাস করা হবে। আগামী বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সংসদে আগামী অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব পেশ করবেন। বাজেট নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা শেষে আগামী ২৯ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও অর্থমন্ত্রীর বাজেট সমাপনী বক্তব্য দেওয়ার কথা রয়েছে। ৩০ জুন পাস করা হবে চলতি অর্থবছরের বাজেট। তবে, এরপরও কয়েক দিন আলোচনা চলতে পারে বলে জানা গেছে। 

অধিবেশনের শুরুতে সভাপতিমণ্ডলীর মনোনয়ন দেওয়া হবে। পরে সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতে মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব আনা হবে। নিয়ম অনুযায়ী বাজেট অধিবেশন দীর্ঘ হয়ে থাকে। সব দলের সংসদ সদস্যরা যাতে বাজেট আলোচনায় অংশ নিতে পারেন তা নিশ্চিত করা হবে। বাজেট ছাড়াও পাসের অপেক্ষায় থাকা ১০টি বিলের মধ্যে বেশ কয়েকটি পাস হবে বলেও জানিয়েছেন প্রধান হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী। 
 
সংসদের গত অধিবেশনে বহুল আলোচিত গণমাধ্যম কর্মী বিল জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করা। পরে বিলটির ওপর ৬০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি পাঠানো হয়। বিলটি চলতি অধিবেশনে পাসের জন্য সংসদে ওঠানো হবে কি-না তা আজকের কার্য-উপদেষ্টা বৈঠকে চূড়ান্ত করা হবে বলে জানান প্রধান হুইপ। 

একাদশ জাতীয় সংসদের সপ্তদশ অধিবেশন গত ২৮ মার্চে শুরু হয়ে চলে ৬ এপ্রিল পর্যন্ত। ৮ কার্যদিবসের অধিবেশনে ১০টি স্থায়ী কমিটির প্রতিবেদন উপস্থাপিত হয়। এ ছাড়া, জয় বাংলাকে জাতীয় স্লোগান ঘোষণা করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে কার্যপ্রণালী বিধির ১৪৭ বিধির আওতায় আনীত প্রস্তাব (সাধারণ) এর ওপর আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। সংসদ সদস্য শাজাহান খান এ প্রস্তাবটি উত্থাপন করেন।





Source link