পরমাণু নিয়ে সমঝোতা সই বাংলাদেশ ও হাঙ্গেরির

22


শান্তিপূর্ণ পরমাণু শক্তি ব্যবহার নিয়ে প্রশিক্ষণ ও শিক্ষা বিষয়ে একটি সমঝোতা সই করেছে বাংলাদেশ ও হাঙ্গেরি। সে সঙ্গে কূটনৈতিক বিনিময় প্রোগ্রাম বিষয়ক আরও একটি সমঝোতা সই করেছে দুই দেশ। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে জানানো হয়, বর্তমানে হাঙ্গেরি সফরে রয়েছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। গতকাল মঙ্গলবার বুদাপেস্টে বাংলাদেশ ও হাঙ্গেরির পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হয়। এতে বাংলাদেশ অংশে নেতৃত্বে দেন এ কে আবদুল মোমেন ও হাঙ্গেরির অংশে নেতৃত্ব দেন দেশটির পররাষ্ট্র ও বাণিজ্যবিষয়ক মন্ত্রী পিটার সিজারতো। বৈঠকে দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রী সম্পর্ক গভীর করার বিষয়ে একমত হন। বিশেষ করে অর্থনৈতিক সহযোগিতা, স্বাস্থ্য, জলবায়ু পরিবর্তন, পানি ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, পরমাণু শক্তি, করোনা পরবর্তী পুনরুদ্ধার এবং স্নাতকোত্তর শিক্ষার বিষয়ে সম্পর্ক গভীর করবে দুই দেশ। বৈঠকের পর দুই মন্ত্রী নিজ নিজ দেশের পক্ষে পরমাণু ও কূটনৈতিক বিনিময় নিয়ে দুটি সমঝোতা সই করেন। 

ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) সদ্য বিদায়ী সভাপতি হিসেবে প্যারিস জলবায়ু চুক্তি বাস্তবায়নে হাঙ্গেরিকে সহযোগিতা বাড়াতে অনুরোধ করেন এ কে আবদুল মোমেন। দুই মন্ত্রীই এ সময়ে পরিষ্কার ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতে সহযোগিতার জন্য একমত হন। 

বৈঠকে দুই মন্ত্রীই পরমাণু নিয়ে সহযোগিতার বিষয়ে একমত হয়। কারণ, বাংলাদেশ ও হাঙ্গেরি পরমাণু বিদ্যুৎ উৎপাদনে একই প্রযুক্তি ব্যবহার করছে। বৈঠকে পরমাণু শক্তিবিষয়ক অভিজ্ঞদের প্রশিক্ষণ ও শিক্ষা দেওয়ার বিষয়ে একমত হয় দুই দেশ। হাঙ্গেরির দেওয়া বৃত্তি নিয়ে দুই দেশের বিদ্যমান সহযোগিতার বিষয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন দুই মন্ত্রী। বছরে ১৪০ জন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে হাঙ্গেরির বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃত্তি দেওয়া হয়। 

বৈঠকে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের দ্রুততার সঙ্গে মিয়ানমারে টেকসই প্রত্যাবাসনে বহুপক্ষীয় ফোরামগুলোতে সহযোগিতা অব্যাহত রাখার জন্য অনুরোধ করেন এ কে আবদুল মোমেন। বৈঠকে হাঙ্গেরির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, বুধবার থেকে ঢাকায় থাকা হাঙ্গেরির কনস্যুলার কার্যালয় পূর্ণভাবে কনস্যুলার সেবা দেবে। আর শিগগিরই ঢাকায় ও বুদাপেস্টে আবাসিক দূতাবাস খোলার বিষয়ে দুই মন্ত্রীই আশাবাদ ব্যক্ত করেন। 

বৈঠকে হাঙ্গেরির পুনর্নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীকে লেখা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চিঠি হস্তান্তর করেন এ কে আবদুল মোমেন। ২০২২ সালের হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রীর সম্ভাব্য সফরের বিষয়ে কাজ করতে বৈঠকে একমত হন দুই মন্ত্রী। 





Source link