সাকিবের ক্রিকেটজ্ঞান ভালো, বললেন তামিম

23


সাকিব আল হাসানের দুর্দান্ত ক্রিকেট জ্ঞানের কথা সর্বজনবিদিত। সতীর্থ থেকে কোচ-এ এক জায়গায় সবার অভিন্ন সুর। তৃতীয় মেয়াদে অধিনায়কত্ব পেয়ে সাকিব কেমন করবেন-এমন প্রশ্নে ঘুরেফিরে মাঠে সাকিবের শাণিত মেধার কথাই বলেছেন পুরোনো গুরু জেমি সিডন্স। সিডন্সের কথাটাই এবার প্রতিধ্বনিত হলো তামিম ইকবালের কণ্ঠে।

‘সাকিবের ক্রিকেটীয় জ্ঞান ভালো, এটা কোনো রকেট সায়েন্স না’-দুই বছরের জন্য একটি মুঠোফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের পণ্য দূত হিসেবে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আজ এ কথা বলেন তামিম। অধিনায়ক হিসেবে সাকিবের আগের দুই মেয়াদে তাঁর অধীনে খেলেছেন তামিম। দুজনের একসঙ্গে পথচলাটা অবশ্য তারও আগে থেকে। তামিম বলছিলেন, ‘আমি ওর অধিনায়কত্বে দুবার খেলেছি। ২০১১ ও শেষবার যখন ছিল। আমি জানি টেস্ট দলের অধিনায়কত্ব সহজ না। এ সংস্করণে ফল খুব বেশি আমাদের পক্ষে আসে না।’

মুমিনুলের স্থলাভিষিক্ত হয়ে টেস্ট অধিনায়কের দায়িত্ব উঠেছে সাকিবের কাঁধে। তামিম নিজে ওয়ানডে দলের অধিনায়ক। দলকে গুছিয়ে তুলতে একজন অধিনায়কের যে যথেষ্ট সময় লাগে, সেটা জানেন তামিম। নিজের প্রসঙ্গ টেনে তাই সাকিবকেও সময় দেওয়ার কথা বলছেন তামিম, ‘আমি যখন অধিনায়ক হয়েছি, বলেছি যে “আমাকে অনেক সময় দিতে হবে”। আমার মনে হয়, একই কথা সাকিবের জন্যও প্রযোজ্য। তারও লম্বা সময় দরকার। এটা এমন একটা সংস্করণ, যেখানে আমরা খুব শক্তিশালীও না।’

সাকিবকে সময় দিলে টেস্ট দলকে দাঁড় করাতে পারবে বলে মনে করেন তামিম। বাঁহাতি ওপেনার বলছিলেন, ‘তার (সাকিব) নেতৃত্ব দারুণ, পরিকল্পনাও। আমাদের সবার সহযোগিতা থাকলে ২-৩ বছরের দারুণ একটি টেস্ট দল হবে।’ তবে এ ক্ষেত্রে সাকিবকে নিয়মিত পাওয়ার ব্যাপার রয়েছে রয়েছে। বাংলাদেশের পরবর্তী চ্যালেঞ্জ ওয়েস্ট ইন্ডিজে। এরপর জিম্বাবুয়ে সফর। সেখানে যেমন সাকিবকে পাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা আছে। তামিম অবশ্য এটা নিয়ে ভাবছেন না, ‘জিম্বাবুয়েতে টেস্ট নেই। যত টুক জানি ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি আছে। আমি এটা নিয়ে ভাবছি না যে, কে যাচ্ছে বা কে যাচ্ছে না।’





Source link