ম্যাচ-সিরিজ দুটোই হারল বাংলাদেশ

32


গায়ানায় শেষ টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাংলাদেশের দেওয়া ১৬৪ রানের লক্ষ্য ১০ বল হাতে রেখেই পোঁছে যায় স্বাগতিকেরা। এই জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতে নিয়েছে ক্যারিবিয়রা। ডমিনিকায় প্রথম টি-টোয়েন্টি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল।

১৬৪ রানের লক্ষ্য দেওয়া বাংলাদেশের বোলিংয়ের শুরুটা অবশ্য দারুণ হয়েছিল। পাওয়ার প্লের মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ২ উইকেট তুলে নেন বাংলাদেশ বোলাররা। আউট হয়ে যান ওপেনার ব্রেন্ডন কিং ও তিনে নামা শামারাহ ব্রুকস। নাসুম আহমেদের প্রথম ওভারের শেষ বলে ফ্লিক করতে গিয়ে মিড অনে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহর রিয়াদের হাতে ধড়া পড়েন কিং (৭)।

পাওয়ার প্লের চতুর্থ ওভারে আরেক স্পিনার মেহেদী হাসানের শিকারে পরিণত হন ব্রুকস (১২)। স্কয়ার লেগে এনামুল হক বিজয়ের হাতে ধরা পড়েন তিনি। উইকেটের মন্থর ভাবের সুবিধা নিতে পাওয়ার প্লের ৬ ওভারেই স্পিনার দিয়ে বোলিং করায় বাংলাদেশ। সপ্তম ওভারে আক্রমণে এসে প্রথম বলেই উইকেট নেন আরেক স্পিনার সাকিব আল হাসান। এই বাঁহাতি স্পিনারকে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে মিস করে এলবিডব্লু হন ওডিন স্মিথ (২)। ৪৩ রানে ৩ উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

এরপরই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিতে শুরু করেন কাইল মেয়ার্স ও নিকোলাস পুরান। দুজনের জুটি থেকে আসে ৮৫ রান। ৩৮ বলে ৫ ছক্কা ও ২ চারে মেয়ার্স ৫১ রানে আউট হলে এই জুটি ভাঙে। স্কোরবোর্ডে ১২৮ রান তুলে ততক্ষণে ম্যাচ অবশ্য ক্যারিবিয়ানদের হাতে। আফিফ হোসেনের বলে রোভম্যান পাওয়েল ৫ রানে আউট হয়ে গেলেও দলের জয় নিশ্চিত করেই মাঠ ছাড়েন পুরান। ৭৪ রানে অপরাজিত থাকেন এই ক্যারিবীয় অধিনায়ক। ৩৯ বলের ইনিংসে সমান ৫টি করে ছক্কা-চার মারেন পুরান। ৪ ওভারে ৪৪ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন নাসুম।





Source link