বাবার মৃত্যুর শোকে ফুটবলকে বিদায় জানালেন তেভেজ

30


জন্মের আগেই নিজের বাবাকে হারিয়েছেন কার্লোস তেভেজ। বড় হয়েছেন দত্তক বাবা সেগুন্দো রাইমুন্দোর কাছে। গত বছর সেই পালিত বাবাও তাঁকে একা করে পৃথিবীর মায়া ছেড়ে। শোক কাটিয়ে উঠতে না পেরে শেষ পর্যন্ত ফুটবলকে বিদায় বলে দিলেন এই আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি।

তেভেজের পেশাদার ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল ২০০১ সালে নিজ দেশের ক্লাব বোকা জুনিয়র্সে হয়ে। এরপর ইউরোপ মাতিয়েছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ম্যান সিটি ও জুভেন্টাসের মতো বড় বড় ক্লাবের হয়ে। তবে বিদায়টা জানালেন শৈশবের প্রিয় ক্লাব বোকা জুনিয়র্সের হয়েই।

গত এক বছর বাবার মৃত্যুর শোকে বিধ্বস্ত ছিলেন তেভেজ। এই সময়ে  কোনো ক্লাবের হয়েই তিনি খেলেননি। শেষবার খেলেছেন বোকা জুনিয়র্সের হয়ে। ৩৮ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন তারকা বিদায়বেলায় বলেছেন,‘ আমি ফুটবল থেকে অবসর নিচ্ছি। কারণ আমার খেলার এক নম্বর সমর্থককে আমি হারিয়েছি’। কোনো ক্লাবের হয়ে আবার খেলার সুযোগ এসেছিল কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তেভেজ বলেন,‘ আমার কাছে অনেক প্রস্তাব এসেছিল। এর মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেরও ক্লাব ছিল। কিন্তু ফুটবলে আমার সবকিছু দেওয়া হয়ে গেছে’।

নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে তেভেজ বলেছেন,‘ আমি কোনো ক্লাবের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর হওয়ার বিষয়ে ভাবছি। এ বিষয়ে আমার ভাই কার্লোস চাপা রাতেগুই এর সঙ্গে কাজ শুরু করব। আমার ভাই আর্জেন্টিনা হকি দলের সাবেক খেলোয়াড় ও কোচ ছিলেন’।

তেভেজ তাঁর ২০ বছরের ক্যারিয়ারে  ৮২২ ম্যাচ খেলে গোল করেছেন ৩২১ টি। এর মধ্যে জাতীয় দলের হয়ে ৭৬ ম্যাচ খেলে ১৩ গোল করেছেন। আর ক্লাবের হয়ে ৭৪৬ ম্যাচ খেলে ৩০৮ গোল করেছেন।দুই দশকের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে জিতেছেন ২০০৪ সালের অলিম্পিক শিরোপা, ১টি চ্যাম্পিয়নস লিগ, ৩টি প্রিমিয়ার লিগ ও ২টি সিরি আ শিরোপা।   ২০০৫ সালে দক্ষিণ আমেরিকার বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচিত হয়েছিলেন তেভেজ।





Source link