পেট্রলের অভাবে অনুশীলনে যেতে পারছেন না লঙ্কান পেসার

8


শ্রীলঙ্কার ইতিহাসে সবচেয়ে খারাপ সময় পার করছে দেশটি। নজিরবিহীন অর্থনৈতিক সংকটের জেরে গত কয়েক মাস ধরে গণবিক্ষোভ করছে শ্রীলঙ্কার জনগণ। দাম দিয়েও মিলছে না নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী। দিনের পর দিন পেট্রল পাম্পের বাইরে লম্বা লাইনে অপেক্ষা করেও গাড়িতে মিলছে না পেট্রল।

দেশের এমন করুণ পরিস্থিতিতে হতাশ চামিকা করুণারত্নে। আক্ষেপের সুরে এই ক্রিকেটার বলছেন, জ্বালানির অভাবে অনুশীলনে যেতে পারছেন না তিনি। ২০১৯ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হওয়া তরুণ সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের সঙ্গে কথা বলার সময় বলেন, ‘দুই দিন দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষা করার পর ভাগ্যক্রমে পেট্রল পেয়েছি, প্রচুর জ্বালানিসংকটের কারণে আমি ক্রিকেট অনুশীলনেও যেতে পারিনি।’ 

স্বাধীনতার পর থেকে জ্বালানি তেলের তীব্র সংকটের পাশাপাশি অর্থনৈতিক সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা। সামনে কেমন দিন আসবে তা-ও জানেন না চামিকা। এ বছর তাঁদের দেশে আয়োজিত হওয়ার কথা এশিয়া কাপ। দেশের এমন পরিস্থিতিতে কীভাবে তা সম্ভব, বুঝতে পারছেন না চামিকা। বলছেন, ‘সামনেই এশিয়া কাপ। আবার লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগের ঘোষণাও হয়ে গেছে। জানি না কী হবে। কারণ এ সময় কলম্বোসহ নানা জায়গায় গিয়ে অনুশীলন করতে হবে। তবে এভাবে পেট্রলের অভাব হলে আর কীভাবে যাব? গত দুই দিন ধরে পেট্রল পাম্পের লাইনে দাঁড়াতে হয়েছে। তাই অনুশীলনেও যেতে পারিনি। অবশেষে আজ পেট্রল পেলাম। তা-ও আবার ১০ হাজার টাকার। খুব বেশি হলে দু-তিন দিন চলবে।’ 

এশিয়া কাপে চামিকা নিজের ও শ্রীলঙ্কা দলের প্রস্তুতি সম্পর্কে অবশ্য আত্মবিশ্বাসী। তবে সাম্প্রতিক সংকট সম্পর্কে উদ্বেগও প্রতিফলিত হয়েছে তার কণ্ঠে। ২৬ বছর বয়সী এই পেসার বলেন, ‘আমরা এশিয়া কাপের জন্য প্রস্তুত এবং আমি মনে করি বড় আসরের জন্য দেশটি যথেষ্ট জ্বালানি জোগাবে। আমরা অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলেছি। এশিয়া কাপের প্রস্তুতিও চলছে।’





Source link