দুর্দান্ত শুরুর পর পথ হারাল বাংলাদেশ 

43


আবার বৃষ্টি বাধার মুখে পড়েছে ডমিনিকায় বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইডিজ প্রথম টি-টোয়েন্টি। বৃষ্টিতে বন্ধ হওয়ার আগে ৭.৪ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ৬০ রান করেছে বাংলাদেশ। পাওয়ার প্লেতে দুর্দান্ত শুরুটা ধরে রাখতে পারেনি সফরকারীরা। বৃষ্টির কারণে ১৬ ওভারে নেমে এসেছে ম্যাচে। 

পাঁচ ওভারের পাওয়ার প্লেতে ২ উইকেট হারিয়ে ৪৬ রান তুলে বাংলাদেশ। পাওয়ার প্লের পরের ২.৪ ওভারে আরও দুই উইকেট হারিয়ে তুলতে পারে ১৪ রান।   
ওপেনিংয়ে প্রথমবার জুটি বাঁধেন আনামুল হক বিজয় ও মুনিম শাহরিয়ার। আকিল হোসেনের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলেই আউট হন মুনিম (২)। ক্যাচ দেন উইকেটকিপার ডেভন থমাসের গ্লাভসে। প্রায় পাঁচ বছর টি-টোয়েন্টি একাদশে ফেরা বিজয় অবশ্য দুরন্ত শুরু পেয়েছিলেন। তাঁর প্রথম দুইটি স্কোরিং শটই চার। প্রথমটি বাঁহাতি স্পিনার আকিলের বলে, দ্বিতীয়টি পেসার রোমারিও শেফার্ডের দ্বিতীয় ওভারে। 

তবে ইনিংসটা বড় করতে পারেননি বিজয়। পাওয়ার প্লের চতুর্থ ওভারে আউট হন বিজয় একপ্রান্তে শেফার্ডকে সরিয়ে আরেক পেসার ওবেড ম্যাকয়কে আক্রমণে আনেন অধিনায়ক নিকোলাস পুরান। নিজের তৃতীয় বলেই সাফল্য এনে দেন ম্যাকয়। উড়ন্ত খেলতে থাকা বিজয়কে ফেরান ১৬ রানে। এলবিডব্লিওর বিপক্ষে রিভিউ নিয়েও লাভ হয়নি বিজয়ের।  

দুই উইকেট হারিয়ে পাওয়ার প্লেতে ৪৬ রান তুলে বাংলাদেশ। গত এক বছরে টি-টোয়েন্টিতে এটাই পাওয়ার প্লেতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ স্কোর। এ সময়টাতে ৯ বলে ১৯ রান আসে তিনে নামা সাকিব আল হাসানের ব্যাট থেকে। এরপরই পথ হারায় বাংলাদেশ। পরের ২.৪ ওভারের মধ্যে আউট হয়েছেন উইকেটে থাকা সাকিব ও লিটন দাস। প্রথমে শেফার্ডের স্লোয়ার বুঝতে না পেরে ক্যাচ দিয়ে ৮ ফিরে যান লিটন। ৮ রান করতে খরচ করেন ১৪ বল। লিটনের পর আউট হয়ে যান সাকিবও। লেগ স্পিনার হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়রের বলে উইকেটকিপার থমাসের গ্লাভসবন্দি হন তিনি। ১৫ বলে সমান দুটি চার-ছক্কায় ২৯ রান করেন সাকিব।





Source link