দর্শকদের সুখবর দিলেন কাতারের আমিরের বোন

29


ফিফা বিশ্বকাপ দেখতে ফুটবলপ্রেমীদের সমাগম ঘটবে কাতারে। তবে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ ও ইসলামি অনুশাসন মেনে চলা দেশটি এরই মধ্যে দর্শকদের চলাফেরায় কড়াকড়ি আরোপ করেছে।

সমকামীদের নিজস্ব পতাকা (রেইনবো ফ্ল্যাগ) ব্যবহার, অবাধ মেলামেশা, জনসমক্ষে মদ্যপান, রাতভর পার্টি ও অবৈধ যৌন মিলন নিষিদ্ধ করেছে কাতার সরকার। এমন কর্মকাণ্ডে জড়িত ব্যক্তিদের শাস্তি হিসেবে জরিমানার সঙ্গে ৭ বছর কারাদণ্ডের ঘোষণা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। সে কারণে বিদেশি দর্শকদের বিনোদন পাওয়ার জন্য শুধু ফুটবলেরই ডুব দিতে হতো।

তবে দর্শকদের কিছুটা স্বস্তি এনে দিয়েছে কাতারের আমিরের বোন আল মায়াশা আল থানির একটি পোস্ট। টুইটারে তিনি জানিয়েছেন, বিশ্বকাপে ভিন্নধর্মী বিনোদনের সুযোগ করে দিচ্ছেন তারা।

আল মায়াশা আল থানি লিখেছেন, ‘আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, আগামী ১৬ ডিসেম্বর স্টেডিয়াম ৯৭৪-এ কাতার ফ্যাশন ইউনাইটেডের আয়োজনে ক্যারিন রাওটফেল্ড রানওয়ে (ফ্যাশন শো) করবে। সেমিফাইনাল ও ফাইনালের মাঝামাঝি সময়ে এটি মঞ্চস্থ হবে।

ফুটবল বিষয়ক ওয়েবসাইট ‘গোল ডট কম’ জানাচ্ছে, নিজেদের সংস্কৃতি, ঐতিহ্য বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে বিশ্বকাপ ফাইনালের আগে ভার্চুয়াল ফ্যাশন শো আয়োজন করবে কাতার। এ ছাড়া কনসার্টের ব্যবস্থাও করা হবে। ফ্যাশন শোতে এক শর বেশি নামীদামি ব্র্যান্ড অংশগ্রহণ করবে। আর কনসার্টে অংশ নেবেন বিশ্বের সেরা সংগীত শিল্পীরা। ফুটবল মহাযজ্ঞের সঙ্গে এমন ভিন্নধর্মী অনুষ্ঠান দেখতে দর্শকদের অপেক্ষা করতে হবে আর সাড়ে ৪ মাস।

স্টেডিয়াম ৯৭৪ নামকরণের পেছনেও গল্প আছে। বিশ্বকাপের এ ভেন্যু তৈরি করা হয়েছে জাহাজের ৯৭৪টি কন্টেইনার দিয়ে। কাতারের ডায়ালিং কোডও (আন্তর্জাতিক দূরালাপনি সংযোগ নম্বর) ৯৭৪। তাই স্টেডিয়ামও এ নামে নামকরণ করা হয়েছে। বিশ্বকাপের পর চাইলে যেকোনো জায়গায় কন্টেইনারগুলো সরিয়ে নেওয়া যাবে।





Source link