চোখের জলে গুরুর পুরস্কার নিলেন সাবিনা

30


সাতক্ষীরার কোচ আকবর আলী। বহু বছর ধরে দেশের ক্রীড়াঙ্গনে নারীদের তুলে এনেছেন তিনি। তাঁর হাত ধরেই উঠে আসা ফুটবলার সাবিনা খাতুন এখন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক।

ক্রীড়াঙ্গনে অবদান রাখায় এবার বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতির পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন আকবর। কিন্তু পুরস্কার নেওয়ার আগের দিন হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান এই কোচ। 

আজ শৈশবের কোচের হয়ে মঞ্চে বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতির (বিএসপিএ) দেওয়া পুরস্কার নিতে এসে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন সাবিনা। দুই চোখ তাঁর ছলছল করছিল। ক্যাপের আড়ালে সেই অশ্রু লুকাতেও চাইলেন সাবিনা। 

শুধু সাবিনাই নয়; আকবরকে হারানোর শোকে ছেয়ে গেছে পুরো অনুষ্ঠান। শোকাহত বিকেএসপির ক্রিকেট কোচ ও উপদেষ্টা নাজমুল আবেদীন ফাহিমও। 

মঞ্চে কথা না বললেও অশ্রুভেজা চোখে কোচের স্মৃতি চারণ করেছেন সাবিনা। বলেছেন, ‘ব্যাপারটা ভিন্নভাবে হতে পারত (পুরস্কার গ্রহণ)। তাঁদের মতো মানুষ আছে বলেই আমরা সাবিনা, শিরিন (আরেক ক্রীড়াবিদ) হতে পেরেছি। আমাদের জন্য তাঁরা যে পরিশ্রম করেছেন, সেটির প্রাপ্য মর্যাদা দিতে পারিনি।’ 

প্রথমবার পুরস্কারের জন্য মনোনীত হলেও নিজ হাতে নেওয়া হলো না আকবরের। তবে একটি পুরস্কার তাঁর কোচের জন্য পুরো অবদান তুলে ধরে না বলে মত সাবিনার, ‘তিনি অনেক কিছু পাওয়ার যোগ্য। যেটা পুরস্কার দিয়ে পূরণ করা যাবে না। আমরা তাঁর ছাত্রীরা যদি সামনে বসে পুরস্কার নিতে দেখতাম, তাহলে খুশি হতাম।’ 

সাবিনার মতো শোকে কাতর ফাহিম বলেছেন, ‘আমি ঘুম থেকে উঠে যখন শুনলাম আকবর আলী নেই, তখন বিস্মিত হয়েছি। একজন মানুষ তাঁর সারা জীবনের কাজের স্বীকৃতি হাতে তুলতে পারলেন না। এটা খুব বেদনাদায়ক। তবে মৃত্যুর আগে জেনে গেছেন, তিনি একজন বিশেষ মানুষ।’





Source link