ক্রিকেট ছাড়া আমাদের জীবনে আর কিছুই নেই

49


এ মুহূর্তে শ্রীলঙ্কানরা ঠিকমতো নিজেদের পরিবারের খাবার সংগ্রহ করতে পারছেন না। ধীরে ধীরে তাঁদের মুখের হাসি ম্লান হয়ে যাচ্ছে। সব মিলিয়ে দেশটির নাগরিকদের জীবনযাত্রার মান দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। এমন পরিস্থিতিতেও তাঁরা দেশের ক্রিকেটারদের সমর্থন জোগাতে নিয়মিত গ্যালারিতে আসছেন। 

বর্তমানে শ্রীলঙ্কা রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। নাগরিকেরা ঠিকমতো রান্না করতে পারছেন না জ্বালানি কিংবা গ্যাসের কারণে। শুধু গ্যাস নয় ওষুধ, বিদ্যুতেরও সমস্যা চলছে দেশটিতে। গণপরিবহনের চলাচলও বন্ধ হয়েছে। স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও অফিসের কাজ বাড়ি থেকেই করা হচ্ছে। দেশের পরিস্থিতি কবে ভালো হবে জানে না কেউ। 

এমন সংকটেও বন্ধ নেই শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট। লঙ্কাবাসীরা ক্রিকেটারদের সমর্থন দিতে স্টেডিয়ামেও যাচ্ছেন। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস-দাসুন শানাকারা দেশবাসীকে সমর্থনের প্রতিদানও দিয়েছেন। সমর্থকদের মুখে হাসি এনেছেন। এমন কঠিন সময়ে তাঁরা বাংলাদেশে এসে টেস্ট সিরিজ জিতেছেন। নিজেদের মাটিতে অস্ট্রেলিয়াকে ওয়ানডেতে হারিয়েছেন। 

দুঃসময়ে ক্রীড়াপ্রেমীরা ক্রিকেটে আনন্দ পাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন। গলে প্রথম টেস্ট দেখতে এসে উজিত নীলান্ত বলেছিলেন, ‘দেশে এখন হাজারো সমস্যা আছে। আমরা একঘেয়ে জীবনযাপন করছি। কখনো কখনো ৫ / ৭ দিন বাড়িতে রান্না হচ্ছে না গ্যাস ও জ্বালানির সংকটে। বাচ্চাদের মুখ থেকে হাসি উধাও হয়েছে। আমরা ক্রিকেট খেলা দেখার সময় মানসিকভাবে কিছুটা ভালো বোধ করি।’ 

চলতি বছর পাবলিক পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল নেথুমাকসিলার। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সে সুযোগ পাচ্ছেন না ১৬ বছর বয়সী শিক্ষার্থী। তিনি গল টেস্ট দেখতে এসে বলেছিলেন, ‘দুঃখের সময়ে আমাদের শুধু ক্রিকেট আছে। মনকে শান্ত করতে টেস্ট দেখতে এসেছি।’ 

এত অল্প সময়ের মধ্য ৭ জন অধিনায়ক যে মোটেই আদর্শ কিছু না সে ব্যাপারে আমি একমত। তবে এটা হয়েছে এড়ানো যায় না এমন পরিস্থিতির কারণে। যেমন দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে সাদা বলে রোহিতে নেতৃত্ব দেওয়ার বিষয়টি ঠিকঠাক ছিল, তবে সফরের আগে সে চোটে পড়ে। এরপর লোকেশ রাহুল ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দেয়। আবার ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ শুরুর এক দিন আগে সে চোটে পড়ে। 

ইংল্যান্ডে রোহিত করোনা নিয়ে প্রস্তুতি ম্যাচে খেলেছে। এই পরিস্থিতিতে কারওই ভুল ছিল না। সূচিটা এমন যে আমাদের খেলোয়াড়দের বিশ্রাম দিতে হতো। আর এর মাঝে চোট তো আছেই। মূলত অনভিপ্রেত পরিস্থিতির কারণেই আমাদের নতুন নেতৃত্ব খুঁজতে হয়েছে।





Source link