কোহলিকে বাদ দেওয়ার মতো নির্বাচক এখনো জন্মায়নি

10


একসময় ব্যাট হাতে বিরাট কোহলির সেঞ্চুরি উদ্‌যাপন ছিল প্রায় নিয়মিত দৃশ্য। ‘ছিল’ লেখার কারণ, আড়াই বছরেরও বেশি সময় ধরে সেঞ্চুরি নেই ৩৩ বছর বয়সী তারকার ব্যাটে। সাম্প্রতিক সময়ে ভুগছেন রানখরায়ও।

অবস্থা এমন যে, দল থেকে ‘বাদ’ পড়ার মতো ঘটনাও কোহলির জীবনে ঘটে গেল। ২২ জুলাই থেকে শুরু হতে যাওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে দলে তাঁর জায়গা হয়নি। অবশ্য ভারতীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, বাদ নয়, বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে কোহলিকে। তবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তারা তাঁর বিশ্রামের বিষয়ে বিস্তারিত কিছুই জানাননি। 

ইংল্যান্ড সফরে ফের রানখরার কারণে কোহলির বাদ পড়া স্বাভাবিক মনে হতেই পারে। লন্ডনে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ভারতের ১০০ রানে হারের ম্যাচে ২৫ বলে মাত্র ১৬ রানে ফেরেন তিনি। গত কয়েক ম্যাচে এমন অধারাবাহিক কোহলিকেই তো দেখা গেছে। তাঁর প্রতিটি ব্যর্থতার পর বেশ কয়েকটি বিষয় বারবার সামনে এসেছে। হয় বিশ্রাম দেওয়া হোক কোহলিকে, নয়তো বাদ।

কিন্তু উইন্ডিজদের বিপক্ষে কোহলির দলে না থাকা নিয়ে বেশ গরম ক্রিকেটপাড়া। কেবল ভারত নয়, পাকিস্তানের বর্তমান-সাবেক ক্রিকেটাররাও যোগ দিয়েছেন সেই আলোচনায়। দুর্বল ফর্মে থাকলেও কোহলিকে দল থেকে বাদ দেওয়ার মতো লোকের জন্ম হয়নি বলে মনে করেন রশিদ লতিফ। এক ইউটিউব চ্যানেলে পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ককে প্রশ্ন করা হয়েছিল কোহলিকে বাদ দেওয়া উচিত কি না। উর্দুতে রশিদ লতিফের উত্তর, ‘বিরাট কোহলিকে বাদ দেওয়ার মতো নির্বাচক এখনো জন্মায়নি ভারতে।’ 

খারাপ সময়ে কোহলি ক্রমাগত সমর্থন পাচ্ছেন অধিনায়ক রোহিত শর্মার। পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজমও আছেন সেই দলে। তবে কোহলির রানের জন্য লড়াইয়ের প্রসঙ্গে ঝাঁজালো কথা বলেন সৌরভ গাঙ্গুলি। বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্টের কথার সূত্র ধরে রশিদ লতিফ জানান, বলির পাঁঠা বানানো হচ্ছে কোহলিকে।

গাঙ্গুলির কথার তীব্র সমালোচনা ছিল পাকিস্তানের এই সাবেক উইকেটরক্ষক-ব্যাটারের মুখে, ‘আপনি কেবল একজন খেলোয়াড়কে নিয়ে কথা বলছেন। কিন্তু পুরো ভারতীয় দলের ধারাবাহিক জয় নেই। অন্য খেলোয়াড়দের রক্ষা করতে আপনি কোহলির কাঁধে বন্দুক রাখছেন। ২০১৯ বিশ্বকাপ, ২০২১ বিশ্বকাপের দিকে তাকান… কোহলি যদি পারফর্ম না করেও থাকে, তবে অন্যরা কী করেছে?’





Source link