অবসরের ইঙ্গিত বাংলাদেশের ‘যন্ত্রণা’ সুনীল ছেত্রীর 

33


বয়স চলছে ৩৭। এই বয়সেও এখনো তরুণদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মাঠের এপ্রান্ত-ওপ্রান্ত ছুটে বেড়ান ভারতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী। উপভোগ করেন তরুণদের সঙ্গে খেলা।

মাঠে খেলার মতো ফিট থাকলেও বয়সের কারণেই শেষের ডাক শুনতে পাচ্ছেন আন্তর্জাতিক ফুটবলে বাংলাদেশকে পেলেই জ্বলে ওঠা এই ফরোয়ার্ড।

এখনো আন্তর্জাতিক ফুটবলে খেলছেন এমন ফুটবলারদের মধ্যে গোল সংখ্যায় ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ঠিক পরেই আছেন সুনীল ছেত্রী। প্রায় দুই দশকের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে করেছেন  ৮০ গোল। বাংলাদেশের বিপক্ষে আছে ছয় গোল। এক ছেত্রীর কারণেই একাধিক ম্যাচে জয়ের কাছাকাছি গিয়েও ১৯ বছর ধরে ভারতের বিপক্ষে জয় পাওয়া হয় না বাংলাদেশের। এমনকি সবশেষ দুই ম্যাচেও জামালদের বিপক্ষে তিন গোল আছে তাঁর।

বাংলাদেশের জন্য সুখবর হয়ে আসতে পারে ছেত্রীর এক বক্তব্য। এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বের আগে সংবাদ সম্মেলনে ভারতীয় অধিনায়কের কণ্ঠে মিলল অবসরের আভাস। বলেছেন,‘ অনেকেই আমাকে প্রশ্ন করেন, এটাই আমার শেষ এশিয়ান কাপ কি না। অবশ্য পাঁচ বছর আগেও এই প্রশ্নই শুনতে হয়েছিল। হয়তো আমার নিজের কাছেও এই প্রশ্নের উত্তর নেই। যত দিন উপভোগ করব, ফুটবল চালিয়ে যাব। যে দিন থেকে খেলে আনন্দ পাব না, ছেড়ে দেব।’

এদিকে সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের মাথায় ঝুলে আছে ফিফার নিষেধাজ্ঞার ঝুঁকি। গত মাসে এআইএফএফ সভাপতি প্রফুল্ল প্যাটেলকে সরিয়ে তিন সদস্যের একটি কমিটি গড়ে দিয়েছিলেন ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট। সাধারণত স্বায়ত্তশাসিত সংস্থায় তৃতীয় পক্ষের অনুপ্রবেশ পছন্দ নয় ফিফার। দুই মাসের মধ্যে ফেডারেশনের নির্বাচন না হলে ফিফা থেকে নির্বাসিত হতে পারে ভারত। একই কারণে দুই বছর আগে ফিফার নিষেধাজ্ঞা পেয়েছিল পাকিস্তান।

নিষেধাজ্ঞা ঝুঁকি নিয়েও কথা বলেছেন ছেত্রী। সেই কথাতেও আকারে-ইঙ্গিতে জড়িয়ে আছে অবসর প্রসঙ্গ, ‘এই খবরটা শোনার পরে আমিও আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিলাম। কারণ, এ রকম কিছু হলে দেশ জুড়ে চরম অস্থিরতা তৈরি হতো। তা ছাড়া আমার বয়স এখন ৩৭। জানি না, আর কত দিন খেলতে পারব। এটাই আমার শেষ ম্যাচ হবে কি না, তা-ও জানি না। তবে আমার সামান্য জ্ঞান দিয়ে যা বুঝেছি, চিন্তিত হওয়ার কারণ নেই। আশা করছি, ফিফা ভারতকে নির্বাসিত করবে না।’





Source link