সেভেরোদনেৎস্ক থেকে পিছু হটেছে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী

36


ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় শহর সেভেরোদনেৎস্কে রাশিয়ার সেনাবাহিনীর প্রবল বোমাবর্ষণের মুখে টিকতে না পেরে পিছু হটেছে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী। তাঁরা এখন সেভেরোদনেৎস্কের ছোট্ট একটি অংশ নিয়ন্ত্রণ করছে মাত্র। স্থানীয় সময় বুধবার সেভেরোদনেৎস্কের গভর্নর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

সেভেরোদনেৎস্কের গভর্নর সেরহি গাইদাই জানিয়েছেন, কিছুদিন আগে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী সেভেরোদনেৎস্কে রুশ সেনাবাহিনীকে রুখে দেওয়ার প্রচেষ্টা নিয়েছিল। তাঁরা শহরটির প্রায় অর্ধেক নিজেদের নিয়ন্ত্রণে এনেছিল। পরে রুশ সেনা ও বিমানবাহিনী ওই এলাকায় প্রবল বোমাবর্ষণ শুরু করলে সেসব এলাকা আর দখলে রাখতে পারেনি। 

সেরহি গাইদাই বলেছেন, ‘আমাদের সেনাবাহিনী এখন কেবল শহরের উপকণ্ঠের ছোট একটি অংশ নিয়ন্ত্রণ করছে। তবে লড়াই এখনো চলছে, আমাদের বাহিনী এখনো সেভেরোদনেৎস্ক রক্ষায় লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। রুশ বাহিনী পরিপূর্ণভাবে শহরটির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে এ কথা বলা সম্ভব নয়।’ 

এদিকে, যুদ্ধবিরতি এবং ইউক্রেনের খাদ্যশস্য রপ্তানির বিষয়ে রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে আলোচনার নতুন পটভূমি তৈরি হয়েছে। বুধবার রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভের সঙ্গে এক বৈঠকের পর তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলেত কাভুসোগলু এ কথা বলেছেন। 

তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় সের্গেই লাভরভের সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে মেভলেত কাভুসোগলু বলেন, তুরস্ক বিশ্বাস করে—মানবতার খাতিরে যত দ্রুত সম্ভব এই যুদ্ধ শেষ হওয়া উচিত। এবং এই যুদ্ধ আলোচনার মাধ্যমেই শেষ হতে পারে। 

কাভুসোগলু এ সময় আরও বলেন, তুরস্ক রাশিয়া এবং ইউক্রেনের মধ্যকার সংকট নিরসনে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালনে আগ্রহী। তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘ইউক্রেনের খাদ্যশস্য রপ্তানি বন্ধ হওয়াটা যুদ্ধের একটি নেতিবাচক প্রভাব। এবং শিগগিরই এই অচলাবস্থা কাটিয়ে রপ্তানি চালু করা উচিত।’ 





Source link