ব্রিটেনের নতুন অর্থমন্ত্রী নাদিম জাহাবি 

13


ব্রিটেনের নতুন চ্যান্সেলর অব এক্সচেকার বা অর্থমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন নাদিম জাহাবি। গত মঙ্গলবার তাঁর পূর্বসূরি ঋষি সুনাক পদত্যাগ করায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন নাদিম জাহাবিকে তাঁর স্থলাভিষিক্ত করেন। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল–জাজিরার এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে। 

৫৫ বছর বয়সী নাদিম জাহাবি দেশটির অর্থনীতির এক সংকটপূর্ণ সময়ে দায়িত্ব গ্রহণ করছেন। বিগত প্রায় ৩ দশকের মধ্যে ব্রিটেন বর্তমানে বেশ বড় ধরনের মূল্যস্ফীতিতে ভুগছে। সামনের দিনগুলোতে তাঁর জন্য দেশটির সাধারণ জনগণের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য নাগালে রাখতে বড় ধরনের চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে। 

এর আগে, নাদিম জাহাবি ব্রিটেনের শিক্ষামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। 

এর আগে, অর্থমন্ত্রী ঋষি সুনাক এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ গত মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের কাছে তাদের পদত্যাগপত্র জমা দেন। পদত্যাগের কারণ হিসেবে তাঁরা মান বজায় রেখে বরিস জনসনের সরকার পরিচালনার সক্ষমতার দিকেই ইঙ্গিত করেন। 

কোভিড লকডাউনে আইন ভেঙে পার্টি করার অভিযোগ থেকে মুক্তি পেতে না পেতেই দুই মন্ত্রীর পদত্যাগ বরিস জনসন এবং তাঁর সরকারের জন্য বেশ বড় ধরনের হুমকি বলেই মনে করা হচ্ছে।

সাজিদ জাভিদ বলেছেন, বরিস জনসনের একগাদা কেলেঙ্কারির পর তিনি জাতীয় স্বার্থ বজায় রেখে বরিস জনসন সরকার পরিচালনা করতে পারবেন এই বিষয়ে আস্থা হারিয়ে ফেলেছেন। এই অবস্থায় দায়িত্ব পালনে তাঁর বিবেক সায় দিচ্ছে না। তিনি আরও বলেছেন, ‘অনেক আইনপ্রণেতাসহ সাধারণ জনগণই মনে করে বরিস জনসন জাতীয় স্বার্থ বজায় রেখে সরকার পরিচালনা করতে পারতে সক্ষম নন।’

বরিসের কাছে পদত্যাগপত্রে জাভিদ লিখেছেন, ‘আমি দুঃখের সঙ্গে বলতে চাই, আমার কাছে স্পষ্ট হয়ে গেছে যে—আপনার নেতৃত্বে বর্তমান পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন হবে না। এবং তাই আপনি আমার আস্থা হারিয়েছেন।’

এদিকে, ঋষি সুনাক জানিয়েছেন, তিনি অনিচ্ছা সত্ত্বেও এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কারণ, যেভাবে সরকার চলছে সেভাবে চলতে পারে না। তিনি এক টুইটে বলেছেন, ‘জনগণের আশা সরকার সবকিছু সঠিক ও যথাযথভাবে পরিচালনা করবে।’ তাঁর মতেও বরিস জনসন সরকার পরিচালনার ক্ষেত্রে যথাযথ দক্ষতার পরিচয় দিতে পারেননি।





Source link