বন্যায় ভাসছে সিডনি, বাসিন্দাদের নিরাপদে সরে যাওয়ার নির্দেশ

14


বন্যায় ভাসছে অস্ট্রেলিয়ার সিডনি। আজ সোমবার নতুন করে বাসিন্দাদের নিরাপদে সরে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকায় বন্যা সহসাই কমছে না বলে সতর্ক করেছে কর্তৃপক্ষ। আজ সোমবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে রয়টার্স। 

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের প্রায় ৩০ হাজার বাসিন্দাকে নিরাপদে সরে যেতে বলা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার বেশ কয়েকটি শহরে বন্যায় ঘরবাড়ি, খামার এবং সেতু ডুবে গেছে। চলতি বছর তৃতীয়বারের মতো এমন বন্যা দেখল অস্ট্রেলিয়ার মানুষ। 

ক্যামডেনের মেয়র থেরেসা ফেডেলি বলেছেন, অনেকেই গতবারের বন্যার ক্ষতি কাটিয়ে উঠেছিল। বাড়িঘর, ব্যবসা-বাণিজ্য গুছিয়ে নিতে নিতেই ফের বন্যা পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হলো। এটি দুর্ভাগ্যজনক।’ 

স্থানীয় বাসিন্দা পল ওনিল রয়টার্সকে বলেন, ‘রাস্তা ধসে পড়েছে। ফেরি চলাচল বন্ধ। এমন পরিস্থিতিতে বাড়ি যাওয়ার একমাত্র উপায় নৌকা।’ 

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া কয়েকটি ভিডিওতে দেখা যায়, পেট্রল স্টেশন, সড়ক, বাড়িঘর, গাড়ি বন্যার পানিতে ডুবে গেছে। বন্যার পানিতে আটকে পড়া পরিবারগুলোকে সরিয়ে নিতে কাজ করছে সামরিক বাহিনী। 

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় নিউক্যাসল থেকে সিডনির দক্ষিণে নিউ সাউথ ওয়েলস উপকূলে প্রায় ১০০ মিলিমিটার বৃষ্টি হতে পারে। 

ব্যুরো আবহাওয়াবিদ জোনাথন হাউ বলেন, ‘আজ বিকেল থেকে আবার বৃষ্টি শুরু হতে পারে।’ 

জলবায়ু কাউন্সিল বলছে, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে এমন প্রাকৃতিক দুর্যোগ নেমে আসছে। অস্ট্রেলিয়া জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় ‘অপ্রস্তুত’। 

অস্ট্রেলিয়ার কেন্দ্রীয় জরুরি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক মন্ত্রী মারে ওয়াট বলেছেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তনকে গুরুতরভাবে নেওয়া উচিত।’ 





Source link