পদত্যাগের জন্য প্রস্তুত শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী

12


শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহ পদত্যাগ করতে সম্মত হয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের বরাত দিয়ে আজ শনিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বিবিসি। 

প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের কার্যালয় জানিয়েছে, একটি সর্বদলীয় সরকার গঠনের জন্য তিনি পদত্যাগে সম্মত হয়েছেন। 

স্থানীয় সময় শনিবার বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো। সারা দেশ থেকে বিক্ষোভকারীরা এসে জড়ো হন শহরটিতে। সরকারবিরোধী র‍্যালি ও বিক্ষোভ প্রদর্শনের একপর্যায়ে প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবনে ঢুকে পড়েন তাঁরা। চলমান অচলাবস্থার মধ্যেই প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহ পদত্যাগে সম্মতির বিষয়টি জানালেন। 

এক বিক্ষোভকারী আল জাজিরাকে বলেন, ‘আজকের দিনটিকে আমার কাছে স্বাধীনতা দিবস বলে মনে হচ্ছে। যারা আমাদের জাতিকে শূন্যের কোঠায় নিয়ে গেছে তাঁদের মতো স্বৈরাচার ও লোভী রাজনীতিবিদদের বিরুদ্ধে আমরা লড়াই করছি।’ 

উল্লেখ্য, ১৯৪৮ সালে স্বাধীনতা লাভের পর সবচেয়ে নাজুক অর্থনৈতিক সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা। নিকট ইতিহাসে ইউরোপের দেশ গ্রিস এমন সংকটের মুখোমুখি হয়েছিল। দেশটি প্রায় দেউলিয়া হতে হতে বেঁচে গেছে। এখনো গ্রিস আগের জৌলুশ ফিরে পায়নি। এখন শ্রীলঙ্কাও সেই পথেই হাঁটছে কি না, এমন শঙ্কা জাগছে বিশ্লেষকদের মনে। 

শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক সংকট এতটাই তীব্র যে, দেশটির নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য, জ্বালানি তেল এমনকি ওষুধ কেনার প্রয়োজনীয় অর্থ নেই। দেশটির প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে সম্প্রতি জানিয়েছেন, তাঁদের অর্থনীতি পুরোপুরি ভেঙে পড়েছে। বিশ্লেষকেরা বলছেন, দেশটির নেতৃত্ব পর্যায়ে ব্যাপক ভুল ব্যবস্থাপনা এবং দেশটির জনগণের কিঞ্চিৎ দুর্ভাগ্য মিলিয়েই এই বিপর্যয়।





Source link