নোবেলজয়ী সাংবাদিক মারিয়া রেসার সংবাদমাধ্যম বন্ধের নির্দেশ

52


ফিলিপাইনের সংবাদমাধ্যম র‍্যাপলারের ওয়েবসাইট বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই সংবাদমাধ্যমের সহপ্রতিষ্ঠাতা দেশটির নোবেলজয়ী সাংবাদিক মারিয়া রেসা। আজ বুধবার র‍্যাপলার কর্তৃপক্ষ এই আদেশের কথা জানিয়েছে। যুক্তরাজ্যভিত্তিক গণমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। 

ফিলিপাইনের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তের কট্টর সমালোচক হিসেবে পরিচিত মারিয়া রেসা। তিনি দুতার্তের মাদকের বিরুদ্ধে অভিযানের কঠোর সমালোচক। 

ফিলিপাইন সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন আজ বুধবার এক বিবৃতিতে নিশ্চিত করেছে, গণমাধ্যমে বিদেশি মালিকানার ওপর সাংবিধানিক ও বিধিবদ্ধ বিধিনিষেধ লঙ্ঘনের জন্য র‍্যাপলারের লাইসেন্স প্রত্যাহার করা করেছে। 

তবে র‍্যাপলার কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা এই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করবে। তারা তাদের সাইট বন্ধ করবে না। 

মারিয়া রেসা বুধবার সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘আমরা স্বাভাবিকভাবে আমাদের কাজ ও ব্যবসা চালিয়ে যাব। আমরা আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করব এবং আমাদের অধিকারের জন্য দাঁড়ানো অব্যাহত রাখব।’ 

নোবেলজয়ী এই সাংবাদিক বলেছেন, এই রায় ‘অত্যন্ত অনিয়মিত’ কার্যক্রমের পরে এসেছে। সাইটটি আর আইনের শাসনের ওপর নির্ভর করতে পারে না। 

উল্লেখ্য, মারিয়া রেসা নোবেলজয়ী প্রথম ফিলিপিনো। তিনি প্রায় দুই দশক অনুসন্ধানী প্রতিবেদক হিসেবে মার্কিন সম্প্রচারমাধ্যম সিএনএনে কাজ করেছেন। তিনি ছিলেন দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াবিষয়ক প্রতিবেদক। 

২০২০ সালে ফিলিপাইনের বিতর্কিত অ্যান্টি সাইবার ক্রাইম আইনে অভিযুক্ত হন রেসা। এই আইন দিয়ে ফিলিপাইন সরকার মূলত মত প্রকাশের স্বাধীনতা এবং মানবাধিকার সংগঠনগুলোকে দমাতে চেয়েছিল। ওই মামলায় ২০১৯ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি গ্রেপ্তার হন তিনি। একজন ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মিথ্যা খবর প্রকাশের অভিযোগে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

 ২০১৮ সালে মিথ্যা খবরের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য টাইমস পারসন অব দ্য ইয়ারে নাম ওঠে রেসার। এ ছাড়া প্যারিসভিত্তিক সংগঠন রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারসের শীর্ষ ২৫ ব্যক্তিত্বের মধ্যে একজন মারিয়া রেসা।





Source link