নিষেধাজ্ঞার মধ্যে জরুরি রিজার্ভে সাড়ে ৯ বিলিয়ন ডলার যোগ করল রাশিয়া

12


জরুরি রিজার্ভ তহবিলে ৫৫১ দশমিক ৪ বিলিয়ন রুবল (৯ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার) অতিরিক্ত যোগ করেছে রুশ সরকার। পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা এবং ইউক্রেনে যুদ্ধ পরিচালনার জন্য ব্যয় থেকে সৃষ্ট অর্থনৈতিক অনিশ্চিয়তা মোকাবিলায় বিভিন্ন খাতে প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে পুতিন সরকার। এর পরিস্থিতির মধ্যে বৃহস্পতিবার (৯ জুন) জরুরি রিজার্ভ তহবিলে সাড়ে ৯ বিলিয়ন ডলার অতিরিক্ত যোগ করার ঘোষণা দিল ক্রেমলিন। 

রুশ সরকার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘চলমান বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক উন্নয়নের স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নেওয়া পদক্ষেপগুলো বাস্তবায়নের জন্য এই তহবিলের কিছু অংশ ব্যবহার করা হবে।’ 

মূলত জ্বালানি তেল এবং গ্যাস রপ্তানি থেকে আসা অতিরিক্ত মুনাফা দিয়েই রিজার্ভ বাড়িয়েছে রাশিয়া। পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও রপ্তানি থেকে প্রতিদিন কয়েক মিলিয়ন ডলার রাজস্ব আনছে রাশিয়া। 

পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার অভূতপূর্ব পদক্ষেপ নিয়েছে। রাশিয়াকে চাপে ফেলার জন্য বেশ কয়েকটি পদক্ষেপের মধ্যে একটি হলো— কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সোনা এবং বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের প্রায় অর্ধেক বা ৩০০ বিলিয়ন ডলার স্থগিত করেছে। 

রাশিয়া এর আগে তেল এবং গ্যাসের মুনাফা থেকে তার ১৯৮ বিলিয়ন ডলারের সার্বভৌম সম্পদ তহবিলে যুক্ত করে। 

কিন্তু জরুরি রিজার্ভ তহবিল হলো নগদ অর্থের অত্যন্ত সংবেদনশীল একটি অংশ। সরকারকে তার নিজস্ব ঘাটতি পূরণ করতে, পেনশনে সাম্প্রতিক জরুরি বরাদ্দ বৃদ্ধির মতো সামাজিক সুরক্ষা খাতে ব্যয়ে এবং অর্থনৈতিক সঙ্কটের প্রতি প্রতিক্রিয়ায় রিজার্ভে প্রভাব পড়ে। 

রাশিয়া সরকার মে মাসে এই তহবিলে ৭৯১ দশমিক ৬ বিলিয়ন রুবল (১৩ দশমিক ৫৬ বিলিয়ন ডলার) যোগ করে। 

রাশিয়ার অর্থনীতি দুই দশকেরও বেশি সময়ের মধ্যে সবচেয়ে বড় মন্দার মধ্যে পড়তে যাচ্ছে। ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স ইনস্টিটিউট রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমের নিষেধাজ্ঞাকে ‘বিনিয়োগে ৩০ বছরের মধ্যে সর্বাধিক অসামঞ্জস্য’ বলে অভিহিত করেছে। এই সংকট ১৫ বছরের গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক অর্জনকে ব্যর্থ করে দিতে পারে বলে উল্লেখ করেছে সংস্থাটি। 

ক্রেমলিন এরই মধ্যে অর্থনৈতিক সঙ্কট দূর করার প্রয়াসে দেশের বৃহৎ বাণিজ্যগুলোকে সহযোগিতা দিতে পাশে দাঁড়িয়েছে। যেখানে এরই মধ্যে দুই দশকের মধ্যে মুদ্রাস্ফীতি সর্বোচ্চ স্তরে বেড়েছে এবং আগামী মাসগুলোতে পারিবারিক আয় কমে যেতে থাকবে। 

গত মে মাসে সরকার দেশের বৃহত্তম কর্মসংস্থান খাত রাশিয়ান রেলওয়েতে ৪ বিলিয়ন ডলার ঢেলেছে। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন এয়ারলাইন অ্যারোফ্লোটকে ১ দশমিক ৭৫ বিলিয়ন ডলার প্রণোদনা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।





Source link