নাইজেরিয়ায় গির্জায় বন্দুক হামলায় নিহত কমপক্ষে ৫০ 

30


নাইজেরিয়ার একটি ক্যাথলিক গির্জায় বন্দুকধারীর হামলায় নারী ও শিশুসহ কমপক্ষে ৫০ জন নিহত হয়েছেন। গতকাল রোববার দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ওন্ডো রাজ্যের ওয়ো শহরের সেন্ট ফ্রান্সিস ক্যাথলিক গির্জায় এই হামলার ঘটনা ঘটে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

ওহো হাসপাতালের একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন, ঘটনাস্থল থেকে শহরের দুটি হাসপাতালে ৫০ জনের মরদেহ আনা হয়েছে।

ওন্ডো রাজ্যের পুলিশের মুখপাত্র ফানমিলায়ো ইবুকুন ওদুনলামি বলেছেন, ‘ওই বন্দুকধারী গির্জার ভেতরে এবং বাইরে থাকা উপাসকদের ওপর গুলি করেন। এতে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত করছে।’ তবে এই পুলিশ কর্মকর্তা কতজন হতাহত হয়েছেন তা নির্দিষ্ট করে বলেননি।

ওন্ডো রাজ্যের গভর্নর আরাকুনরিন ওলুওয়ারোতিমি আকেরেদোলুর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘রোববারের হামলা একটি গণহত্যা। এমন হামলা আর ঘটতে দেওয়া হবে না।’ এই হামলার উদ্দেশ্য সম্পর্কে এখনো বিস্তারিত জানা যায়নি। 

নাইজেরিয়ার ক্যাথলিক গির্জার মুখপাত্র রেভারেন্ড অগাস্টিন ইকু বলেছেন, এটা খুবই দুঃখজনক যে, যখন গির্জায় সবাই প্রার্থনারত ছিল, তখন অজ্ঞাত এক বন্দুকধারী এই হামলা করেছে। 

অগাস্টিন ইকু জানান, তবে এই হামলা থেকে গির্জার বিশপ ও পুরোহিতরা বেঁচে গেছেন।

নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারি এই হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি এই হামলাকে ‘জঘন্য’ হামলা বলে অভিহিত করেছেন। অন্যদিকে পোপ ফ্রান্সিস হামলায় নিহতদের জন্য প্রার্থনার আহ্বান করেছেন।

নাইজেরিয়া উত্তর-পূর্বাঞ্চলের একটি ইসলামপন্থী বিদ্রোহীদের সঙ্গে লড়াই করছে। এই বিদ্রোহীরা মুক্তিপণের জন্য আক্রমণ ও অপহরণ করে থাকে।





Source link