জাপোরিঝিয়া বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে ইউক্রেনের জাতীয় গ্রিড বিচ্ছিন্ন

32


রুশ বাহিনীর দখলে থাকা জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সঙ্গে ইউক্রেনের পাওয়ার গ্রিডের শেষ সংযোগটিও বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ফলে ইউক্রেনের জাতীয় গ্রিড থেকে জাপোরিঝিয়া কেন্দ্রের সংযোগ পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হলো।

ইউরোপের সর্ববৃহৎ এই পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কাছে রুশ বাহিনীর সঙ্গে ইউক্রেনের সেনাদের তুমুল লড়াই চলছে। যা সেখানকার নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ আগস্ট) এক বিবৃতিতে ইউক্রেনের পরমাণু সংস্থা এনার্জোঅ্যাটম জানায়, আগ্রাসীদের (রাশিয়া) কর্মকাণ্ডের কারণে জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র (জেএনপিপি) এই প্রথম জাতীয় বিদ্যুৎ গ্রিড থেকে পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে গেল। হামলায় সৃষ্ট অগ্নিস্ফুলিঙ্গের কারণে কেন্দ্রটির কাছাকাছি একটি থার্মাল প্ল্যান্টের পাশে বিদ্যুতের তারে আগুন লাগায় দুটি সক্রিয় পাওয়ার ইউনিটের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

রুশ বাহিনীর দখলে থাকা জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সঙ্গে ইউক্রেনের জাতীয় পাওয়ার গ্রিডের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ছবি: টুইটার

রাশিয়ার গোলা বর্ষণের কারণে পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির তিনটি বিকল্প লাইন আগেই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল বলেও বিবৃতিতে দাবি করা হয়। এর আগে রাশিয়া জাপোরিঝিয়ার বিদ্যুৎ নিজেদের গ্রিডের সঙ্গে যুক্ত করার জন্য কেন্দ্রটির সংযোগ ইউক্রেনের বিদ্যুৎ গ্রিড থেকে বিচ্ছিন্ন করতে চাইছে বলে সতর্ক করেছিল এনার্জোঅ্যাটম।

স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ওই পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আশপাশে তেজস্ক্রিয়তার মাত্রা এখনো স্বাভাবিক পর্যায়ে আছে। ইউক্রেনের মোট বিদ্যুতের একটা বড় অংশের জোগান আসত কেন্দ্রটি থেকে। ফলে জাতীয় গ্রিড থেকে এটি বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া দেশটির জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে।

জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রটি গত মার্চের শুরু থেকে রাশিয়ার দখলে রয়েছে। তবে ইউক্রেনের প্রযুক্তিবিদরা রাশিয়ার নির্দেশে বিদ্যুৎকেন্দ্রটি এখনো পরিচালনা করছে। 





Source link