জাপানে জন্মহার সর্বনিম্নে

28


জাপানে ২০২১ সালে সবচেয়ে কম শিশুর জন্ম হয়েছে, যা ১৮৯৯ সালের পর সর্বনিম্ন জন্মহার। স্থানীয় সময় শুক্রবার (৩ জুন) দেশটির সরকারি পরিসংখ্যানে এমন তথ্য তুলে ধরা হয়। এর মধ্য দিয়ে প্রাকৃতিকভাবে সর্বাধিক জনসংখ্যা হ্রাসের রেকর্ড হলো জাপানে। 

জাপানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, গত বছর দেশটিতে জন্মগ্রহণ করেছে ৮ লাখ ১১ হাজার ৬০৪ শিশু। আর মোট মৃত্যু হয়েছে ১৪ লাখ ৩৯ হাজার ৮০৯ জনের। ফলে এক বছরে জনসংখ্যা হ্রাস পেয়েছে ৬ লাখ ২৮ হাজার ২০৫ জন। 

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, জাপানি নারীদের সন্তান জন্মদানের হার ষষ্ঠ বছরের মতো কমে ১ দশমিক ৩ শতাংশে নেমে এসেছে। পৃথিবীতে বার্ধক্যে পৌঁছানো মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধিতে শীর্ষে থাকা দেশগুলোর অন্যতম জাপান। দেশটিতে উদ্বেগজনক হারে প্রজন্মগত ব্যবধান বাড়ছে। গত বছর জাপানে বিয়ের হারও কমেছে। ২০২১ সালে দেশটিতে বিয়ে হয়েছে ৫ লাখের কিছু বেশি। 

জাপানে প্রবীণের সংখ্যা দ্রুত বাড়তে থাকায় কর্মক্ষম মানুষের সংখ্যা কমে আসছে। ছবি: রয়টার্স

দেশটিতে তরুণদের তুলনায় প্রবীণের সংখ্যা দ্রুত বাড়তে থাকায় কর্মক্ষম মানুষের সংখ্যা কমে আসছে। এ ছাড়া করোনা মহামারিতে সীমানা বন্ধ করে দেওয়ায় দেশটির কর্মী সংখ্যা আরও কমেছে। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সামনের বছরগুলোতে জাপানে জনসংখ্যা আরও কমবে, সেই সঙ্গে বাড়বে প্রবীণ মানুষের সংখ্যা। এর কারণ জাপানের সর্বনিম্ন জন্মহার। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২০৬০ সাল নাগাদ জাপানের মোট জনসংখ্যার ৪০ শতাংশই হবে ৬৫ বছর বা তার বেশি বয়সী। 





Source link