গুজরাট দাঙ্গার নিয়ে মোদী বিরোধী ষড়যন্ত্রের দায়ে অভিযুক্ত প্রয়াত কংগ্রেস নেতা

31


ভারতের গুজরাট দাঙ্গার বিষয়ে নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকার অভিযোগ উঠেছে প্রয়াত কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেলের বিরুদ্ধে। আদালতে হলফনামা দিয়ে এমনই অভিযোগ করেছে গুজরাট পুলিশের অপরাধ দমন শাখার বিশেষ তদন্তকারী দল বা এসআইটি। 

তবে কংগ্রেস এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। দলটির পাল্টা অভিযোগ, মোদীর প্রতিহিংসা যন্ত্র মৃতদের বিরুদ্ধেও সক্রিয়। প্রয়াত কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেলের মেয়ে মুমতাজ প্যাটেল বলেছেন, তাঁর বাবা মৃত্যুর পরও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব। তাই তাঁকে ফাঁসানো হচ্ছে। বিজেপিকে কটাক্ষ করে তিনি বলেছেন, তাঁর বাবা বেঁচে থাকাকালে কেন তাঁকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি বিজেপি! উল্লেখ্য, ২০২০ সালে মারা যান বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল। 

এর আগে, ২০০২ সালে মোদী গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালে ভয়াবহ দাঙ্গায় ১ হাজারেরও বেশি মানুষ প্রাণ হারান। তখনকার প্রধানমন্ত্রী ও বিজেপি নেতা অটলবিহারী বাজপেয়ি মোদীকে সে সময় রাজধর্ম পালনের পরামর্শ দিয়েছিলেন। বিরোধীদের অভিযোগ, মোদীর ইন্ধনে বিজেপিই দাঙ্গার জন্য দায়ী। তবে গত মাসে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট গুজরাট দাঙ্গা থেকে মোদীকে ক্লিন চিট দিয়েছেন। 

গুজরাট দাঙ্গার বিষয়ে বড় ধরনের ষড়যন্ত্রের অভিযোগে সমাজকর্মী তিস্তা শীতলাবাদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাঁর সঙ্গে গ্রেপ্তার হয়েছেন সাবেক দুই পুলিশ কর্মকর্তা আরবি শ্রীকুমার ও সঞ্জীব ভাটকে। 

আহমেদাবাদের একটি আদালতে তিস্তার জামিনের আবেদন খারিজ করেছে। পরে এসআইটি জানিয়েছে, আহমেদ প্যাটেলের কাছ থেকে ৩০ লক্ষ রুপি নিয়ে তিস্তাও ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলেন। এই হলফনামার পরই মোদী-সরকারের কড়া সমালোচনা করেছে কংগ্রেস। দলের সাধারণ সম্পাদক জয়রাম রমেশ শনিবার এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘তদন্তকারী সংস্থাকে হাতের পুতুল বানিয়ে বিরোধীদের ওপর প্রতিহিংসা চরিতার্থ করা মোদী-অমিত শাহের কৌশল। এখন তাঁরা মৃত ব্যক্তির ওপরও সেই কৌশলের আশ্রয় নিচ্ছেন।’





Source link