গণপ্রজাতান্ত্রিক কঙ্গোয় অস্ত্রধারীদের হামলায় ১৮ জনের মৃত্যু 

51


আফ্রিকার দেশ গণপ্রজাতান্ত্রিক কঙ্গোয় সন্দেহভাজন অস্ত্রধারীদের হামলায় অন্তত ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় একটি গ্রামে স্থানীয় সময় গতকাল রোববার রাতে এই ঘটনা ঘটে। ওই এলাকায় দেশটির সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠীর এম ২৩ এর সঙ্গে পার্শ্ববর্তী এলাকার অ্যালাইড ডেমোক্রেটিক ফোর্সের সঙ্গে সংঘর্ষ আবারও শুরু হওয়ায় এই ঘটনা ঘটেছে। 

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল–জাজিরার এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে আল–জাজিরা জানিয়েছে, ধারণা করা হচ্ছে অ্যালাইড ডেমোক্রেটিক ফোর্সের অস্ত্রধারীরা ইটুরি প্রদেশের ইরুমু অঞ্চলের অটোমেবেরে গ্রামে হত্যাকাণ্ড চালায় এবং গ্রামটি জ্বালিয়ে দেয়। 

গণপ্রজাতান্ত্রিক কঙ্গোর সেনাবাহিনীর মুখপাত্র জুলস নগঙ্গো অ্যালাইড ডেমোক্রেটিক ফোর্সের হামলার ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেছেন, মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে। 

অটোমেবেরে গ্রামের বাসিন্দা কিমেঞ্জা মালেম্বে বলেন, ‘আমরা কয়েকজন বন্ধু মিলে বাইরে গল্প করছিলাম। এমন সময় হঠাৎ আমরা গুলির শব্দ শুনতে পাই। আমরা যে যেদিকে পারছিলাম পালিয়ে গেছি। একটি ভয়াবহ অবস্থা ছিল সেখানে। পরে আজ সকালে যখন গ্রামে যাই তখন সেখানে গিয়ে আমরা ১৮ জনের মৃত দেহ পাই। তাঁদের সবাইকে গুলি ও চাকু দিয়ে হত্যা করা হয়েছিল।’ 

উল্লেখ্য, ১৯৯৫ সালে প্রতিবেশী দেশ উগান্ডায় অ্যালাইড ডেমোক্রেটিক ফোর্স গঠিত হয়। পরে তা গণপ্রজাতান্ত্রিক কঙ্গোয় চলে আসে। জাতিসংঘের হিসাব অনুসারে ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২২ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত এক বছরে অ্যালাইড ডেমোক্রেটিক ফোর্সের হাতে ১ হাজার ৩০০ জনেরও বেশি মানুষ মারা গেছে।





Source link