এবার পার্লামেন্ট থেকে পদত্যাগ করলেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের ভাই

19


এবার শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্ট থেকে পদত্যাগ করেছেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোতাবায় রাজাপক্ষের ভাই ও সাবেক অর্থমন্ত্রী বাসিল রাজাপক্ষে। বৃহস্পতিবার বাসিল রাজাপক্ষে তাঁর পদত্যাগের ঘোষণা দেন। তাঁকে নিয়ে শ্রীলঙ্কার রাজনীতিতে প্রভাবশালী রাজাপক্ষে পরিবারের দুই সদস্য সরকার থেকে সরে গেলেন। এর আগে, দেশটির প্রধানমন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগ করেন মাহিন্দা রাজাপক্ষে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল–জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাসিল রাজাপক্ষে জানিয়েছেন তিনি দেশটির পার্লামেন্ট থেকে পদত্যাগ করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘আজ থেকে আমি সরকারের আর কোনো কর্মকাণ্ডে জড়িত হব না। তবে, আমি রাজনীতি থেকে দূরে সরে যাচ্ছি না।’ 

এর আগে, শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করা মাহিন্দা রাজাপক্ষে দেশটিতে উদ্ভূত অর্থনৈতিক সংকটের পরিপ্রেক্ষিতে জনরোষের মুখে পদত্যাগ করেন। তবে, তিনি প্রধানমন্ত্রিত্ব ছাড়লেও দেশটির পার্লামেন্ট থেকে পদত্যাগ করেননি। 

শ্রীলঙ্কার রাজনীতিতে রাজাপক্ষে পরিবারেরে তিন ভাই–মাহিন্দা, গোতাবায় এবং বাসিল রাজাপক্ষে অন্যতম প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব। বিগত কয়েক দশক ধরেই তাঁরা শ্রীলঙ্কার রাজনীতির অন্যতম নিয়ন্ত্রক। কিন্তু সম্প্রতি দেশটিতে স্বাধীনতার পর বিগত ৭০ বছরের মধ্যে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটের মুখোমুখি হওয়ায় তাদের সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে ওঠে। 

এদিকে, চলতি বছরের বাকি ছয় মাস চলতে শ্রীলঙ্কার অন্তত ৫০০ কোটি ডলার প্রয়োজন। দেশটির প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার জানিয়েছেন, দেশটির নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের চাহিদা মেটাতেই এই ৫০০ কোটি ডলার প্রয়োজন। রনিল বিক্রমাসিংহে মঙ্গলবার দেশটির পার্লামেন্টে বলেন, দেশটির নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য—খাদ্য, জ্বালানি এবং সার কেনার জন্য এই অর্থ প্রয়োজন হবে। 

বিক্রমাসিংহে বলেন, এই ৫০০ কোটি ডলারের মধ্যে জ্বালানি আমদানি করতে প্রয়োজন ৩৩০ কোটি ডলার, ৯০ কোটি ডলার প্রয়োজন খাদ্যদ্রব্য আমদানি করতে, ৬০ কোটি ডলার প্রয়োজন প্রয়োজনীয় সার আমদানি করতে এবং ২৫ কোটি ডলার প্রয়োজন রান্নায় ব্যবহৃত সিলিন্ডার গ্যাস আমদানি করতে। 

বিক্রমাসিংহে পার্লামেন্টে বলেন, ‘বিপুলসংখ্যক লোক খাদ্যের অভাবে ভুগতে পারে। এ জন্য আমরা খাদ্য সহায়তা কর্মসূচি চালু করতে যাচ্ছি। যাদের কোনো আয় নেই তারাও এই কর্মসূচির আওতায় খাবার পাবেন। আমরা দেশের বিভিন্ন মন্দির এবং গির্জায় লঙ্গরখানা খুলতে পারি সহায়তার জন্য। এ ক্ষেত্রে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।’ 

তবে সংকট কাটিয়ে উঠতে দেশটি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল–আইএমএফের সঙ্গে বেইলআউট বিষয়ে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। 





Source link